Bangla ArticlesDigital Marketing TipsFacebook Tips & Tricks

৮ টি প্রয়োজনীয় দক্ষতা একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ারের অবশ্যই থাকতে হবে

৮ টি প্রয়োজনীয় দক্ষতা একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ারের অবশ্যই থাকতে হবে ।

চমত্কার একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার হবার জন্য কোন একটি গোপন রেসিপি নাই ।
তাই আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে মার্কেটিং ব্যাপারটি কার্যকারী করে তুলতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের দক্ষতা পূর্ণ মাত্রায় আছে ।

এই টাই হচ্ছে মোক্ষম সময় খেলায় অংশ নেয়ার । অনেক উন্নতি , বেশী টাকার চাকরি , সন্তোষজনক
কাজ এই সব দিক দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার সি এন এন এবং পে স্কেল এর টপ ১০০ চাকরির মাঝে ৪২ নাম্বারে অবস্থান করছে ।

সোশ্যাল মিডিয়া তে ব্র্যান্ডের সাথে মানুষের সখ্যতা গড়ে তুলতে , কোম্পানির একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার দরকার যে তাদের বিজনেস কে অনলাইনে পরবর্তী ধাপে নিয়ে যেতে সাহায্য
করবে ।

আপনি সোশ্যাল মিডিয়া গুরু বা সবে মাত্র শুরু করছেন যাই হন না কেন , এই পোস্ট পড়ে শেষ করে
নজর কাড়া কনটেন্ট তৈরি করতে পারবেন এবং আপনার বিজনেসের একেবারে বোটম লাইন থেকে
সংযোগ গড়ে তুলতে পারবেন ।

( আপনি যদি সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার নিয়োগ দিতে চান তবে এই সব দক্ষতা যাচাই করে নিবেন )

১- লিখা এবং সম্পাদনা

যখনি আপনি ফেসবুক পোস্ট বা এডওয়ার্ড এড লিখবেন তখনই , শব্দ একটি ব্যাপার । ভাল লিখা গণসংযোগ জোরদার করে , আপনার অরগানিক রিচ বৃদ্ধি করে , এবং সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার মনে রাখার মত ব্র্যান্ড গড়ে দেয় ।

তবে ভয় পাবেন না প্রাকৃতিক ভাবে যদি লিখা না আসে তাহলে মার্কেটে অনেক টুল আছে যা সাহায্য
করতে পারে । Hemingway App একটি আমার প্রিয় টুল যা অতিরিক্ত শব্দ বাদ দিয়ে সোজা যা দরকার তা বলে দিবে ।

যেহেতু ভালর কোন বিকল্প নাই তাই আপনি যোগ্যতা সম্পন্ন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার নিয়োগ
দিতে পারেন ।

২- SEO

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এবং সোশ্যাল মিডিয়া রিচ এর মাঝে যে লিঙ্ক আছে সেটা কনফিউজিং মনে হতে পারে । গুগল পরামর্শ দেয় সোশ্যাল সিগন্যাল SEO রেংকিং এ তেমন কোন প্রভাব ফেলে না
কিন্তু পুরো ছবি আরও বেশী জটিল ।

যে কনটেন্ট অনেক বেশী রিচ করে বেশী বেশী লাইক , কমেন্ট , শেয়ার পাই তা একই গণসংযোগ মেট্রিক এর সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয় যা গুগল এলগরিদম রিড করে এবং ইতিবাচক ভাবে আপনার রেংকিং এর উপর প্রভাব ফেলে । এই টা হচ্ছে পারস্পরিক সম্পর্ক অফিস ওয়ার্ক না ।

তাই আপনি যখন SEO ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যান করবেন না তখন এই আইডিয়া আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার যে কমন মিস্টেক গুলি করে থাকে তা থেকে আপনাকে সতর্ক করবে ।
সৌভাগ্যবশত মার্কেটে অনেক ভাল ভাল SEO টুল আছে । আপনার কোম্পানি সম্পর্কিত ব্যাপার গুলি
কিভাবে গুগলে সার্চ করা হয় তার কি ওয়ার্ড , ফ্রেজ গুলি বের করে দিবে । এই টা অনেক হেল্পফুল হবে যদি সেই বিষয় গুলি নিয়ে আপনি লিখতে চান ।

কিন্তু আপনি যদি SEO মারপ্যাঁচে ক্লান্তি অনুভব করেন , তবে মনে রাখবেন SEO মানে হচ্ছে গ্রেট
কনটেন্ট তৈরি করা যা মানুষ লাইক , কমেন্ট , শেয়ার করবে ।

৩- গ্রাহক সেবা

আমি পারসনালি হলড এ থেকে অপেক্ষা করতে পছন্দ করি না , তাই বেশীর ভাগ সময় সোশ্যাল মিডিয়া ইউজ করে ব্র্যান্ডের সাথে কানেক্ট হতে চাই । এবং আমি একা নই এই রকম । স্টাডি বলে ৬৭
ভাগ মানুষ নির্দিষ্ট কিছু জানতে এবং কোন প্রবলেমের সমাধান খুঁজতে সোশ্যাল মিডিয়া ইউজ করে ।
অনেক বড় অংশ ।

তাই এটা গুরুত্ব পুর্ন যে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার এর কিছু বেসিক গ্রাহক সেবা দক্ষতা থাকতে
হবে ।

সময়ে সেবা দেয়া
যারা প্রবলেম এর জন্য সোশ্যাল মিডিয়া ইউজ করে তারা সাধারনত ১ ঘণ্টার মাঝে রিপ্লাই আশা করে
থাকে ।

 

আপনার বিজনেস সম্পর্কিত আলোচনা মনিটর এবং খুঁজে বের করা । ( মার্কেটে হুতসুইত সহ অনেক টুল আছে যা আপনার বিজনেস সম্পর্কিত আলোচনা , গণসংযোগ ইত্যাদি জানাবে )

 

অভিযোগের অপেক্ষা করবেন না

আগেই সমাধান করে ফেলুন যখন আপনার ফলোআর ক্রিয়া প্রতিক্রিয়া তে যে সব সুবিধা অসুবিধা

গুলি তুলে ধরে ঠিক তখন ।

গ্রাহক সেই ব্র্যান্ড কে ভালবাসে যে তদেরকে রেসপন্স করে , একজন গ্রাহক যখন সোশ্যাল মিডিয়া
তে ইতিবাচক সার্ভিস এর অভিজ্ঞতা পায় তখন প্রায় ৩ গুণ সম্ভাবনা বেড়ে যায় সেই ব্র্যান্ড কে তার
ফ্রেন্ড এর কাছে রেফার করার ।

৪- ডিজাইন এবং ফটো ইডিটিং

ধন্যবাদ স্মার্ট ফোন আমরা সবাই আমাদের পকেটে বহন করে থাকি , এখন যে কেউ ফটোগ্রাফার হতে পারে । সে জন্য যে কোন সময় থেকে এখন বেশী জরুরী যে একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার এর ডিজাইনে ভাল চোখ থাকার সাথে সাথে ব্রান্দিং ইমেইজ বুঝতে পারার এবং তা তৈরি করার
যোগ্যতা থাকতে হবে ।

কেননা মানুষ ৬৫ % ম্যাসেজ মনে রাখতে পারে যখন কোন ইমেইজ এর সাথে দেয়া হয় , ইমেইজ
ছাড়া ম্যাসেজ মনে রাখার সম্ভাবনা শুধুমাত্র ১০% ।

আপনার সোশ্যাল ফিডের অসাধারণ ভিজুয়াল কনটেন্ট তৈরির জন্য ্গ্রাফিক ডিজাইনের ডিগ্রী থাকা
প্রয়োজন নাই । নতুন হিসাবে মার্কেটে অনেক ফ্রি ফটোগ্রাফের সাইট আছে সাথে আছে অনেক টুল
ভিজুয়ালাইজ , ফন্ট , কালার সব কিছুর জন্য ।

৫- এনালিটিকস এবং রিপোর্ট

বিজনেস ফলাফল দ্বারা পরিচালিত । অতএব বিনিয়গের রিটার্ন প্রমান করতে পারাটা একজন ডিজিটাল মার্কে টিয়ারের অবশই গুণ হতে হবে । মার্কেটে Hootsuite এর মত অনেক টুল আছে যা
ইউজ করে ডিজিটাল মার্কে টিয়ার সোশ্যাল মিডিয়ার ROI পরিমাপ করতে পারে । এই সব টুল আপনার বর্তমান এনালি টিকস সিস্টেম এর সাথে কানেক্ট করতে পারে যার ফলে সোশ্যাল ডাটা আপনার বিজনেসের অন্য সব মেট্রিক এর সাথে একজোট হয়ে কাজ করে । তাছাড়া রিপোর্ট তৈরি
করা সহজ করে দেয় যার ফলে আপনার সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কৌশল নিতে সাহায্য করে থাকে ।

বিনিয়োগের রিটার্ন প্রমান করতে পারাটা এবং সেলে উন্নতি সাধন করাটা একজন ডিজিটাল মার্কে টিয়ারের এমন দক্ষতা যা কাজ পেতে অনেক খানি এগিয়ে রাখে ।

৬- ভিডিও তৈরি করা

ভিডিও কনটেন্ট প্রশ্নাতীত ভাবে আপনার গ্রাহকের নিকট পৌঁছানর একটি পথ ।

প্রত্যেক দিন ৫০০ মিলিয়ন মানুষ ফেসবুকে ভিডিও দেখে , এবং এখন থেকে ৪ বছর পর ৮০ %
ইন্টারনেট ট্রাফিক এর দায়িত্ব নিবে ভিডিও কনটেন্ট ।

ফেসবুকের মত প্লাটফর্ম এর জন্য একজন ডিজিটাল মার্কে টিয়ারের অসাধারণ কনটেন্ট তৈরি করার
দক্ষতা থাকতে হবে । তার সাথে সাথে জানতে হবে কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়ার জন্য ভিডিও অপ্তিমাইজ করতে হয় ।

Animoto মত টুল একজন নতুন কে সাহায্য করবে কিভাবে অসাধারণ ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করতে
হয় ।

৭- পেইড সোশ্যাল বেসিক

অরগেনিক এবং পেইড এর মাঝে সম্পর্ক বুঝা একজন ডিজিটাল মার্কে টিয়ারের অবশ্য কর্তব্য ।
দিন শেষে অরগেনিক উপস্থিথি সব থেকে শক্তিশালী মার্কেটিং টুল ।

আপনার একটি ফেসবুক গ্রুপ থাকা মানে আপডেট থাকা কখন মানুষ কিছু পছন্দ করে আর কখন করে না । ইহা আপনার নতুন আইডিয়া , প্রোডাক্ট টেস্ট করার সুযোগ করে দেয় , পরি শেষে আপনার
এডের রিটার্ন নিশ্চিত করে এমন একটি কাজ ।

তাই আপনি যখন পেই ড এড ক্যাম্পেইন রান করেন বা বুঝার চেষ্টা করেন কোন পোস্ট টি বুস্ত করতে হবে , কিভাবে সোশ্যাল এড আপনার রিচ বৃদ্ধি করবে তা বুঝা , অথবা অরগেনিক এড বুস্ত করা একজন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ারের এই দক্ষতা অনেক শক্তিশালী যা সফল হতে সাহায্য
করে ।

আপনি হয়তো AdEspresso এর মত টুল এর পিছনে খরচ করতে চান যা আপনাকে মিনিটে শত শত
এড তৈরি এবং টেস্ট করতে সাহায্য করবে । অবাক হবার মত কিছু নাই ভিন্ন হেডলাইন বা ভিন্ন ইমেইজ হয়ত আপনার এড কেম্পেইনের চেহারাই বদলে দিতে পারে ।

৮- রিসার্চ এবং প্লানিং

আপনি অসাধারণ কনটেন্ট তৈরি করতে পারবেন না যদি আপনার গ্রাহক কে এবং তারা কি চাই সেটা
যদি না জানেন ।

একজ ন সোশ্যাল মিডিয়া মার্কে টিয়ার হিসাবে দায়িত্ব হবে আপনার কনটেন্টে বেবহিত তথ্য নির্ভর
যোগ্য সোর্স থেকে যেন হয় তা নিশ্চিত করা ।

Tags

MD Omar makki

My name is MD Omar Makki, I’m working as Web Developer/Designer, SEO (Search Engine Optimization), SMM (Social Media Marketing), SMO (Social Media Optimization), Hosting Provider, SMA (Social Management Account), Business Adviser, E-Commerce Business Developer from last 6 years.

Related Articles

Leave a Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Close
Close