Bangla ArticlesBusiness IdeaBusiness TipsDigital Marketing TipsE-Commerce Tips & tricks

৭ টি টিপস আপনার ফেসবুক এড ক্যাম্পেইন অপটিমাইজ এর জন্য

৭ টি টিপস আপনার ফেসবুক এড ক্যাম্পেইন অপটিমাইজ এর জন্য

 

আপনার ফেসবুক এডের কার্যকারিতা বাড়াতে চান ?

আপনার এড বাজেটে আরও বেশী ফলাফল পাবার পথ খুঁজছেন ?

এই লিখায় আপনার পরবর্তী ফেসবুক এড ক্যাম্পেইন কে এক ধাপ এগিয়ে কর্মক্ষমতা দেখানোর ৭ টি
টিপস আবিস্কার করবেন ।

১- সেলস ফানেল গড়ে তুলুন

গুগল এড এবং ফেসবুক এডের মধ্যে প্রধান পার্থক্য হল তারা যে ভিজিটর আনে তার ভিন্নতা ।
যে মানুষ গুগল এডে ক্লিক করে সে কার্যত ক্রয় করতে চাই , অপরদিকে যে মানুষ ফেসবুক এডে
ক্লিক করে সে মূলত ব্রাউজ মুডে থাকে কোন কিছু ক্রয় করার সিদ্ধান্ত নিতে বেশ সময় নিয়ে থাকে ।
এইটি আপনার সমস্যার কারন হতে পারে যদি আপনার ফেসবুক এড বাজেট কম হয় এবং মানুষের
সাথে কথোপকথন সৃষ্টি করতে চান ।
তাই সেই ফেসবুক ক্যাম্পেইন যা থেকে আপনি সাথে সাথে আপনার বিক্রয় চান তা চালানো থেকে
আরও বেশী ভাল হবে আপনার ওয়েবসাইট ভিজিটরের জন্য বাড়তি কিছু করা । ভিন্ন ভিন্ন উদ্দেশ্য
নিয়ে কয়েকটি ক্যাম্পেইন চালিয়ে আপনি আপনার নিজস্ব এড ফানেল তৈরি করতে পারেন ।

একটি এনগেজমেনট ফানেল তৈরি করুন
একটি এনগেজমেনট ফানেল অনেক বেশী কাজ করে যদি আপনার আগে থেকেই এনগেজমেনট
কনটেন্ট থেকে থাকে । ভিডিও কনটেন্ট এই কাজের জন্য সব থেকে বেশী কার্যকারী ।
প্রথমে , আপনার আদর্শ গ্রাহক লক্ষ্য করে পোস্ট এনগেজমেনট ক্যাম্পেইন তৈরি করুন । উদ্দেশ্য হচ্ছে
আপনার গ্রাহকের সাথে প্রাথমিক কানেকশন তৈরি করা । মনিটর এবং অপটি মাইজ করুন যতক্ষণ
না আপনার কনটেন্ট ২০০০ থেকে ৩০০০ মানুষ রিচ ন করছে ।

পরে, তাদের কে লক্ষ্য করে ট্রাফিক এবং কথোপকথন ক্যাম্পেইন তৈরি করুন যারা ইতিপূর্বে আপনার
কনটেন্ট কম করে হলেও ২৫ % দেখেছে / পড়েছে । যে সমস্ত ভিজিটর আপনার কনটেন্ট আগে
দেখেছে কথোপকথনে অংশ নেয়া ৩ থেকে ৫ গুন বেশী সম্ভাবনা আছে নতুন ভিজিটর দের তুলনায় ।

View Content Conversion Funnel সেট আপ করুন

এই পদ্ধতি অনেক বড় পথ আপনার পিক্সেল কে এ ধাপ এগিয়ে রাখতে । প্রথমে , আপনার আদর্শ
গ্রাহক কে টার্গেট করে View Content Conversion ক্যাম্পেইন তৈরি করুন । এই ক্যাম্পেইন এর
লক্ষ্য শুধু মাত্র ওয়েবসাইট এ ভিজিটর পাঠান নয় , বরং আপনার অফার এর ব্যাপারে আগ্রহী যারা
তাদের সম্পর্কে আরও বেশী কিছু জানা । মনিটর এবং অপটি মাইজ করতে থাকুন যতক্ষণ না
৫০০ মত কথোপকথন না হয় আপনার পেজের সাথে । তারপর ফলোআপ ক্যাম্পেইন তৈরি করুন
তাদের কে টার্গেট করে যারা আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করেছে এবং ম্যাসেজ দেয়া নেয়া করছে ।

২- ক্যাম্পেইন এর কার্যক্ষমতা পরিচালনা করতে Ad Frequency মনিটর করুন

Ad Frequency হচ্ছে একজন ইউজার আপনার এড ক্যাম্পেইন কত বার দেখেছে । আপনার ফেসবুক ইউজার যদি একবারের বেশী দেখে থাকে তবে মনে রাখার সম্ভাবনা বেশী ।
আবার আপনার এড যদি অনেক বেশী বার দেখে তবে মনোযোগ দেয়া বন্ধ করে দিবে আর আপনার
খরচ বেড়ে যাবে এবং এডের কার্যকারিতা কমে যাবে ।

আপনার এডের কার্যকারিতা পর্যবেক্ষণ করতে এড রিপোর্টে frequency cap যুক্ত করে নিন এবং দেখতে থাকুন কিভাবে ইহা আপনার খরচ এর উপর প্রভাব ফেলে । সাধারণত এডের খরচ বাড়তে
থাকে যখন ইউজার যথেষ্ট বার দেখে ফেলে । যখন দেখবেন আপনার খরচ পার রেজাল্ট ১.৭ ছাড়িয়ে
গেছে । তখন বুঝতে হবে আপনার খরচ অনেক বেড়ে গেছে , তখন আপনার এড সেট বদলে ফেলুন
এবং নতুন টার্গেট নির্ধারণ করুন । ইহা আপনার ক্যাম্পেইন কে রিসেট করতে এবং ইউজার কে
রিফ্রেশ করতে সাহায্য করবে ।

৩- এডের কার্যকারিতার ভিত্তিতে আপনার বাজেট নিয়ন্ত্রন করুন

যখন আপনি আপনার ক্যাম্পেইন প্রথম শুরু করবেন , তখন আপনি দুই থেকে তিন এড সেট টেস্ট
করবেন । কোন এড সেট সব থেকে বেশী কাজে দিচ্ছে তা নির্ধারণ করতে , খরচ দেখুন এবং যে উদ্দেশে ক্যাম্পেইন করছেন তার গুরুত্ত পূর্ণ মেট্রিক গুলি দেখুন । যে এড সেট ভাল পারফর্ম করছে
সেটা রানিং রেখে বাকি গুলি অফ করে দিন ।

যে এড ভাল কাজে দিচ্ছে তার বাজেট ১৫ থেকে ২০ % বাড়িয়ে দিন । এই বাড়িয়ে দেয়া টা ২৪ ঘণ্টা
পর পর করতে থাকুন যতক্ষণ না আপনার এড খারাপ পারফর্ম করতে শুরু করেছে ।

৪- আপনার টার্গেট সংক্ষেপ করুন সঠিক পাঠক পেতে

সঠিক পাঠকের কাছে বেস্ট এড সেট যাওয়া মানে আপনার এড ক্যাম্পেইন সফল । আপনার নতুন
এড ক্যাম্পেইন এর জন্য সঠিক পাঠক নির্ধারণ করতে হিমশিম খেলে Facebook Audience Insights এর সাহায্য নিন ।

age, gender, এবং location দিয়ে ফিল্টার শুরু করুন । তারপর interests যুক্ত করুন আপনার আদর্শ পাঠকের বিস্তারিত তথ্য খুঁজে পেতে । আপনি খুঁজে পেতে পারেন কোন বিজনেস পেজের সাথে
তারা কানেক্ট তাদের আয় , কর্মকাণ্ড , ক্রয় এবং অনেক কিছু ।
আপনার ক্যাম্পেইন এর জন্য সঠিক পাঠকের সাইজ ১০ লাখ সক্রিয় মানুষ হতে পারে । আপনি যদি
মনে করেন আদর্শ পাঠক পেয়ে গেছেন তবে Power Editor এ ভবিষ্যতের জন্য সেভ করে রাখুন ।

৫- বেশী রিচ এর জন্য সঠিক Placement বেছে নিন

যখন আপনি ক্যাম্পেইন তৈরি করবেন , তখন আপনি ভিন্ন ভিন্ন রকম Placement , ডিভাইস , প্লাটফর্ম বেছে নিতে পারেন । আপনি Automatic Placements এ যেতে পারেন আবার Edit Placements এ যেতে পারেন । তবে বেস্ট চয়েস হল কি ধরনের ক্যাম্পেইন চালাতে যাচ্ছেন তার
উপর নির্ভর করছে ।

Instagram যুক্ত করলে আপনার রিচ , এঙ্গেজমেন্ত , ভিডিও দেখার সম্ভাবনা ৩০ থেকে ৪০ % বেড়ে
যায় । যাইহোক আপনি যদি ফেসবুক পেজ এড চালান তবে কম লাইক এবং কমেন্ট আশা করবেন ।

মেসেঞ্জার এড ট্রাফিক এবং কথোপকথন তৈরিতে বেশ ভাল ভুমিকা রাখে , মেসেঞ্জার এড বর্তমানে খুব ভাল করছে ।

Audience Network placements সাধারন ভাবে আপনার এডের জন্য রিচ এবং ট্রাফিক বৃদ্ধি করবে । যাইহোক আপনি conversion rates এবং cost per result এর প্রতি বেশী মনযোগী হবেন ।
ক্কিছু কিছু ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট ডিভাইসে এড চালানো তে কম খরচ হতে পারে যেমন All Mobile Devices
Android Devices Only । Android device এ বেশী রিচ এবং কম খরচ হয় ।

আপনি মোবাইল ডিভাইস ক্যাম্পেইন চালিয়ে দেখতে পারেন কেমন ফলাফল পাওয়া যায় তা টেস্ট করতে ।

৬- সঠিক বিডি ং অপশন বেছে নিন

ফেসবুক এড চলে থাকে অকশন এর উপর ভিত্তি করে । সহজ কথায় ফেসবুক বিড এবং এডের কার্যকারিতার উপর ভিত্তি করে বেস্ট এড বেছে নেয় ।

যেমন আপনি যদি conversion campaign চালান তবে আপনার conversions, landing page views, এবং link clicks থেকে যে কোন একটি বেছে নেয়ার সুযোগ আছে । Conversions হচ্ছে সব
থেকে জনপ্রিয় অপশন গুলির একটি । যাইহোক আপনার বাজেট যদি কম হয় তবে ক্লিক অপশন বেছে নেয়া বুদ্ধিমানের কাজ হবে কারন ফেসবুকের কাছে conversion এর অনেক ডাটা আছে ।
আপনি যদি আপনার ব্লগে বেশী বেশী ভিজিটর চান তবে এঙ্গেমেন্ত বেছে নিতে পারেন ।

৭- আগের এঙ্গেজমেন্ত কাজে লাগানোর জন্য পুরান এড পোস্ট কে নতুন করে কাজে লাগান

সোশ্যাল মিডিয়া মূলত সামাজিক প্রমান এবং জনপ্রিয়তার ব্যাপার । আপনার কনটেন্ট যত বেশী লাইক কমেন্ট পাবে তত বেশী মানুষ এর সাথে এঙ্গেজট হবে ।

“social stacking” কৌশলের মাধ্যমে আপনি আগের লাইক কমেন্ট গুলি রেখে আপনার এডের নিরিক্ষা চালাতে পারেন । এই পদ্ধতি বিশেষ ভাবে কাজ করে যখন আপনি ভিন্ন ভিন্ন টার্গেট অপশন টেস্ট করবেন । সেটার জন্য যা করতে হবে আপনার বর্তমান এডের ad preview তে পেজের ডান পাশে সবার উপরে যে আইকন আছে সেটার উপর ক্লিক করতে হবে । Facebook Post With Comments সিলেক্ট করতে হবে ।

তারপরে preview. তে ক্লিক করলে ফেসবুক URL এ যে নাম্বার গুলি আসবে সে গুলি কপি করতে
হবে । তার পরে নতুন এড তৈরি করতে হবে আর Use Existing Post সিলেক্ট করতে হবে ।
Enter Post ID box এ আপনি যেটা কপি করেছিলেন তা পেস্ট করতে হবে ।

এখন এমন একটি এড তৈরি হল যাতে আগের লাইক এবং কমেন্ট আছে ।

শেষ কথা

ফেসবুক এডের জন্য এলগরিদম চেঞ্জ করতেই থাকে , এবং নতুন নতুন ফিচার আর পথ বের করতেই থাকে । উপরের অনেক টিপস হয়তো অনেক দিন থাকতে পারে , তবে সব থেকে গুরুত্ত পূর্ণ
কথা হচ্ছে যে অনেক গুলি হয়তো আপনার কাজে না লাগতে পারে । তাই যেটি আপনার বেশী কাজে
আসবে তা খুঁজে পেতে ভিন্ন ভিন্ন কৌশল ভিন্ন ভাবে ব্যাবহার করে দেখুন ।

Tags

MD Omar makki

My name is MD Omar Makki, I’m working as Web Developer/Designer, SEO (Search Engine Optimization), SMM (Social Media Marketing), SMO (Social Media Optimization), Hosting Provider, SMA (Social Management Account), Business Adviser, E-Commerce Business Developer from last 6 years.

Related Articles

Leave a Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Close
Close