Business TipsDigital Marketing TipsWeb Develop & Design

১১ টিপস ওয়েবসাইট ডিজাইন এর জন্য যা বিক্রয় বাড়িয়ে দিবে ।

১১ টিপস ওয়েবসাইট ডিজাইন এর জন্য যা বিক্রয় বাড়িয়ে দিবে ।

 

প্রত্যেক বিজনেস মালিক এমন একটি ওয়েবসাইট চাই যা ভিজিটর কে পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে উৎসাহিত করে : বিক্রয় বা যোগাযোগ । এই পদক্ষেপ কে কথোপকথন বলা হয় , এই টা সেই মুহূর্ত যা সম্ভাব্য কাউকে গ্রাহক বানাবে । যদি আপনার ওয়েবসাইট অনেকে ভিজিট করে কিন্তু সে তুলনাই কথোপকথন কম তাহলে আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে , কেন ?

এই টা সত্য যে অনেক কারনে তা হয়ে থাকে । বিশ্বাস করুণ আর নাই করুণ এই টা সত্য যে ওয়েবসাইট ডিজাইন অনেক প্রভাব বিস্তার করে থাকে গ্রাহক এবং তার চয়েস উপর । স্টাডি বলে প্রোডাক্ট বা সার্ভিস মূল্যায়ন করতে ৯০ সেকেন্ড সময় নেয় । ভিজিটর সেই সময় এর কিছু অংশ ওয়েবসাইট কে দিয়ে থাকে , ৮ সেকেন্ড এর ও কম । সেই প্রথম ইমপ্রেশন ৯৪ পারসেনট ডিজাইন সম্পর্কিত । আরও কিছু , ৭৫ % ভিজিটর কোম্পানির বিশ্বাসযোগ্যতা বিচার করে আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন এর উপর ।

বেশিরভাগ সময় প্রথম বার আপনার ওয়েবসাইট এর ভিজিটর ক্রয় এর জন্য রেডি থাকে না । তারা অপশন গুলি অনুসন্ধান করে থাকে আর অন্যদের সাথে তুলনা করে থাকে । আপনি কি জানেন কিভাবে প্রতিযোগিতায় জিতবেন ? আপনার মার্কেটে যারা নেতৃত্ব দিচ্ছে তাদের ওয়েবসাইট দেখুন ।

তারপর সমালোচনামূলক দৃষ্টি নিজের দিকে তাক করুণ ।
এই খানে ১০ টি দিক উল্লেখ করা হল যখন আপনার ওয়েবসাইট এর ডিজাইন নিয়ে বিবেচনা করবেন
এবং সিদ্ধান্ত নিবেন কোনটি সব থেকে বড় দিক যা আপনার বিক্রয় বাড়াতে বেশ ভুমিকা রাখবে ।

১- রঙ । 👇
Performable তাদের call-to-action বাটন ( ম্যাসেজ দিন ,কল করুণ , আরও বেশী জানতে ক্লিক করুণ ) সবুজ থেকে লাল রঙ করায় ২১ % কথোপকথন বেড়ে যায় । Ript Apparel তাদের বাটনের কালার সবুজ থেকে হলুদ কালার করায় ৬.৩ % কথোপকথন বেড়ে যায় । এটা জেনে রাখা ভাল যে সবুজ এবং লাল রঙ যারা কালার ব্লাইনড তাদের অধিকাংশের প্রবলেম হয় ।
এই ছাড়া আপনার গ্রাহকের কথা মাথায় রেখে কাজ করতে পারেন । আপনি যদি টার্গেট করেন মহিলাদের তাহলে নীল , পার্পল , সবুজ এর উপর ফোকাস করুণ । পরুষ এর উপর ফোকাস করলে নীল , সবুজ , কাল বেছে নিতে পারেন । সব থেকে কম কার্যকারী রঙ ব্রাউন , অরেঞ্জ ।

২- ভিডিও । 👇
প্রোডাক্ট বা সার্ভিস সম্পর্কিত ভিডিও কথোপকথন বা বিক্রয় বাড়িয়ে দেয় । পরিমাণ কম বা বেশী হতে
পারে তবে কিছু কোম্পানির রিপোর্ট বলে ১৪৪% পর্যন্ত বিক্রয় বেড়ে যায় । বিজনেস টু বিজনেস বা সার্ভিস বেইজ কোম্পানি ভিডিও এর মাদ্ধমে তাদের স্টোরি বা অন্যদের থেকে আলাদা করে এমন কথা শেয়ার করতে পারে ।

৩- সহজ করা । 👇
সব থেকে বেশী দরকারি তথ্য রাখুন “above the fold.” । ভিজিটর কে বাধ্য করবেন না তারা যা চাই তা পেতে স্ক্রল বা খুঁজতে । খুব সিম্পল ন্যাভিগেশন তৈরি করুণ যাতে ভিজিটর খুব সহজেই খুঁজে পাই যা হোমপেজে নাই ।

৪- আপনার ভিন্নতা ক্লিয়ার করুণ । 👇
আপনার ভিন্নতা কি ? যদি না জানেন তাহলে এই টা আপনার প্রথম সমস্যা । আপনার দ্বিতীয় সমস্যা
? হয়তো আপনার ভিন্নতা স্পষ্টভাবে প্রতীয়মান না আপনার ওয়েবসাইট ভিজিটর এর কাছে । এই টা অবশ্যই ভিজিটর এর সামনে নিয়ে আস্তে হবে কেন আপনার কোম্পানি কে সিলেক্ট করা উচিৎ ।

৫- বিশ্বস্ততার প্রতীক । 👇
কোন সংস্থা বা অথরিটির সার্টিফিকেট বিশ্বস্ততার প্রতীক । আপনার হয়তো সিকুরিটি সিল বা আপনার
ইনদাস্ত্রিজ এর প্রতীক থাকতে পারে যা আপনি শেয়ার করতে পারেন । কোন গ্রাহক এর ইন্টার্ভিউ একই প্রতীক হিসাবে কাজ করতে পারে আপনি যদি তা ভাল ভাবে উপস্থাপন করতে পারেন ।
মোট কথা আপনার উদ্দেশ্য হবে এই টা নিশ্চিত করা যে আপনার সম্ভাব্য গ্রাহক যাতে ফিল করে আপনি মানসম্পন্ন প্রোডাক্ট বা সার্ভিস দিতে সক্ষম ।

৬- ফ্রি অফার । 👇
আপনার যদি কোন ফ্রি আইটেম থাকে তবে ” ফ্রি ” শব্দ টি উচ্চ এবং ক্লিয়ার হতে হবে । কি কারন হতে পারে যে কিছু মানুষ আপনার কোম্পানি থেকে ক্রয় করছে না ? আপনার ওয়েবসাইট এর উচিৎ
হবে কিভাবে আপনি আপনার গ্রাহক এর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন এবং তাদের সমস্যা
চিহ্নিত করে তা সমাধান করে থাকেন ।

৭ – শর্ট ফর্ম । 👇
সম্ভাব্য গ্রাহক আপনার ফ্রি কিছু পেতে তার অনেক তথ্য যেমন জন্ম দিবস , বিবাহ বার্ষিকী , নাম ,
ঠিকানা দিতে প্রস্তুত নাও থাকতে পারে । তাই সংক্ষেপে নাম , নাম্বার , ইমেইল নিন শুধুমাত্র ফ্রি এর
বিনিময়ে । আপনি যদি এখনও captcha টেস্ট দিয়ে রাখেন তাহলে আপনার ডাকে সাড়া দান কারীর
সংখ্যা কমাচ্ছেন ।

৮ – ভারচুয়াল চ্যাট । 👇
আগের চাইতে এখন অনেকে ওয়েবসাইট ভিজিট করে কল দেয়া বা অপশন খোঁজা থেকে অনলাইনে
চ্যাট করতে ভালবাসে । যদি তারা না ও চাই তারপরে দেখে যে চ্যাট করার অপশন আছে তাহলে বিশ্বাসযোগ্যতা বাড়ে ।

৯- হেডলাইন । 👇
আপনার বড় , হেডলাইন অবশ্যই যেন সম্ভাব্য গ্রাহক যে উদ্বেগ প্রকাশ করে তা যেন চিহ্নিত করে ।
তারা কি টাই মিং নিয়ে চিন্তিত ? নাকি প্রক্রিয়া ? নাকি ফলাফল নিয়ে ? যাইহোক না কেন তার সমাধান দিন বড় বড় অক্ষরে ।

১০ – সাদা স্পেস । 👇
একটি এলোমেলো ওয়েবপেজ কুৎসিত দেখায় এবং আবদ্ধ আবদ্ধ ফিল দেয়্ । অনেক বেশী উপাদান
ভিজিটর কে কনফিউজড করে দেয় ফলে তা ছেড়ে ছুড়ে পালায় ।

১১ – Bonus: A/B Testing 👇
যখন কিছু ওয়েব ডিজাইন প্রমাণিত , তারপরেও প্রত্যেক বিজনেস এবং প্রত্যেক ইন্দাস্ত্রিজ আলাদা আলাদা হতে পারে । সেই বিজনেস উত্তরোত্তর বৃদ্ধি হতে থাকবে যে মাঝে মাঝেই ছোট ছোট চেঞ্জ
করে পরীক্ষা চালাতে থাকবে ।( Call-To-Action এর বাটন গুলির রঙ চেঞ্জ করলে কি ঘটে )
যখন মাঝে মাঝেই উঠা নামা দেখবেন তখন এই ছোট ছোট চেঞ্জ এর ফলে ছোট ছোট বৃদ্ধি ঘটবে
ফলাফল আপনার ওয়েবসাইট শক্তিশালী থেকে আরও শক্তিশালী হতে থাকবে ।

তবে মনে রাখতে হবে পরীক্ষা নিরীক্ষা চালানোর সময় শুধুমাত্র একটি চেঞ্জ করে পরীক্ষা করতে
হবে । পরীক্ষা চালাতে পারেন বাটন এর কালার , টেক্সট , এলিমেনট , স্থান চেঞ্জ এর মাধ্যমে ।

তারপর কয়েক সপ্তাহ অপেক্ষা করে ওয়েবসাইট এর ভিজিটর দেখে কোন চেঞ্জ তা পার্মানেন্ট করবেন
বা কোনটা আগের টাই রাখবেন সে সিদ্ধান্ত নিবেন ।

MD Omar makki

My name is MD Omar Makki, I’m working as Web Developer/Designer, SEO (Search Engine Optimization), SMM (Social Media Marketing), SMO (Social Media Optimization), Hosting Provider, SMA (Social Management Account), Business Adviser, E-Commerce Business Developer from last 6 years.

Related Articles

Leave a Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Close
Close