Article Writing TipsBangla ArticlesBusiness IdeaBusiness TipsDigital Marketing TipsEarning Tips & TricksFreelancing Tips

ফেসবুকে ক্লায়েন্ট পাওয়া যায় কীভাবে?

ফেসবুকে ক্লায়েন্ট পাওয়া যায় কীভাবে?

পর্ব ১ঃ

 

যদিও আজকাল ইকনো কলম এ যুগের অনেকেই চিনবেনা কিন্তু আমরা যারা ৯০এর দশকে জন্মেছি তাদের শৈশবের অনেকটা সময় জুড়েই ইকনো কলম ছিল।
কিন্তু আজ নেই।
সেলফোন বিপ্লব যখন শুরু হল তখন সেলফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নোকিয়ার আশেপাশে কাউকে কল্পনা করা যেত না, কারন নোকিয়া ই ৯০ ভাগ মার্কেট দখল করে ছিল।
কিন্তু আজ নেই।
আমার এখনও মনে আছে প্রথম যখন ইমেইল আইডি খুলি সেটা ছিল ইয়াহু তে, তখনও জিমেইল কেউ ওভাবে চিনতো না।
কিন্তু ইয়াহু আজ আর আগের মত নেই।
এরকম হাজারটা উদাহরণ দেওয়া যাবে যারা একসময় টপে ছিল কিন্তু আজ আর নেই আর থাকলেও জরাজীর্ণ।

কারন হিসেবে ধরা যায়,
যখন বাজারে মেটাডোর কলম আসলো তখন অন্যান্য কলমের তুলনায় তাদের নতুন ফিচার গুলো ছিল চিকন কালি, সফট গ্রিপার এবং একটু আকর্ষণীও ডিজাইন এবং পাশাপাশি দামও দুটাকা বেশি। প্রথম অবস্থায় মানুষ নতুন হিসেবে একটু আগ্রহ দেখালো এবং ভাল ভাবে গ্রহণও করল। পাশাপাশি ঠিক ঐ সময়টাতেই কোন পরিবর্তন না এনে আগের মত করেই ইকনো তার কলম গুলো বাজারে ছাড়তেছিল যার কারনে মানুষ নতুন কিছু না পেয়ে ইকনোর প্রতি আগ্রহ হারাল এবং ইকনো দিন দিন বিলুপ্ত হল।

নোকিয়া ফোন ভালই চলতেছিল কিন্তু যখন আইফোন তাদের স্মার্টফোন গুলো বাজারে ছারা শুরু করলো তখনও অনেকের নাগালের বাইরেই ছিল আইফোন এবং এ সুযোগ টা কাজে লাগায় গুগোল এবং তারা ডেভেলপ করে অ্যান্ড্রয়েড কিন্তু তখনও নির্বিকার নোকিয়া। ততদিনে গুগোল অ্যান্ড্রয়েড কে ফ্রি করে দিল তবুও নোকিয়া গ্রহণ করলনা শুধুমাত্র অ্যান্ড্রয়েড অন্য জায়ান্ট কোম্পানির বলে। যদিও নোকিয়া এখন অ্যান্ড্রয়েড ব্যাবহার করে কিন্তু তখন তারা নিজেরাও কোন ওএস বানায়নি এবং অ্যান্ড্রয়েডও গ্রহণ করেনি ফল স্বরূপ নোকিয়া আজ মার্কেটে মরতে মরতে বেঁচে আছে।

আমরা আজ যে জিমেইল ব্যাবহার করছি একবার ভেবেই দেখুন, একটা জিমেইলে শুধুমাত্র ইমেইল ছাড়াই আরও কতগুলি ফিচার গুগোল ফ্রিতে দিয়ে রেখেছে। কিন্তু ইয়াহু এখনও আগের অবস্থানেই। অর্থাৎ তারা নিজের মধ্যে যথেষ্ট পরিবর্তন আনতে পারেনি।

এখনও মনে আছে ১০-১১ বছর আগে যখন ফেসবুক ব্যাবহার করতাম তখন প্রত্যেকটা কাজেই কেপচা লাগতো। কমেন্ট থেকে শুরু করে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট সব ক্ষেত্রেই কেপচা পূরণ করতে হত কিন্তু আজ দেখুন ফেসবুক কত ডেভেলপ। তারা ইউজার এক্সপেরিয়েন্স নিয়ে প্রতিনিয়ত কাজ করে বলেই আজকে ফেসবুক এতো জনপ্রিয়। আর এই জনপ্রিয়তা কে কাজে লাগিয়েই ফেসবুক ভিবিন্ন নতুন নতুন ফিচার এবং বিজনেস ভ্যালু এড করছে প্রতিনিয়ত।

উদাহরণ স্বরূপ আমাদের দেশি কোম্পানি প্রান আরএফএল কেই ধরুন, এমন কোন প্রোডাক্ট পাবেন না যেটা প্রান আরএফএলে নেই। কারন তারা চাইলেই নতুন নতুন প্রোডাক্ট বাজারে ছেরে ইউজার এক্সপেরিয়েন্স অনুযায়ী মার্কেট কে ডিজাইন করে নিতে পারছে, কারন তাদের যথেষ্ট লোকবল এবং সারাদেশে হাজার হাজার শোরুম রয়েছে।

ঠিক তেমনি ফেসবুক দিন দিন নতুন নতুন ফিচার এবং বিজনেস ভ্যালু এড করছে এইযে ধরুন নতুন সংযোজিত ফেসবুক ওয়াচ যেটা ইউটিউবের সাথে পাল্লা দেওয়ার জন্য বানানো হয়েছে। যদিও ইউটিউবের সাথে পারবেনা তবুও তারা অনেক ক্ষেত্রে সফল, কারন তাদের রয়েছে বিলিয়ন বিলিয়ন ইউজার যারা একটু একটু ফেসবুক ওয়াচ ব্যাবহার করলেও অনেক বড় প্রভাব ফেলবে।

এবার চলুন একটু হিসেব করে নেই, আমরা সাধারণ যারা অনলাইন মার্কেট প্লেস তথা আপওয়ার্ক ফাইবার বা বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করি তারা কি একবার ভেবে দেখেছি যদি আমাদের এতো দিনের মার্কেটপ্লেসে গড়ে তোলা স্বাস্থ্যবান প্রোফাইল টি যদি হঠাত বন্ধ হয়ে যায় অথবা আমাদের মার্কেটপ্লেস যদি কোন কারনে নোকিয়া, ইয়াহুর মত গ্রহণযোগ্যতা হারায় তখন আমাদের কি হবে?

চলুন এবার আবার ফেসবুকের হিসেবে ফিরে যাই।
যেহেতু ফেসবুকের বিলিয়ন বিলিয়ন ইউজার রয়েছে সেক্ষেত্রে তারা চাইলেই এই মার্কেটপ্লেসের ফিচার গুলো মুহূর্তেই চালু করতে পারে, আমার যতটুকু মনে হয় আজ হোক বা দুইদিন পর হোক তারা ঠিক ই এটা চালু করবে যেহেতু তাদের বিরাট মার্কেট রয়েছে।
তখন কি আমাদের এই মার্কেটপ্লেসগুলোর গ্রহণ যোগ্যতা এখনকার মতই থাকবে? নাকি ক্লায়েন্টরা অপেক্ষাকৃত সহজ এবং বিশ্বস্ত ফেসবুকের প্রতি ঝুঁকবে?

আর যদি তাই ই হয় তাহলে ঐসব প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সার গুলো কোথায় যাবে যারা এখনও নিজের প্রোফাইলে “ওয়ার্কস এট বাপের হোটেল” এবং প্রোফাইল ইন্ট্রো তে “আই এম হো আই এম” দেওয়া?

সময় এসেছে ফেসবুক প্রোফাইল কে প্রফেশনাল ভাবে তুলে ধরার, যাতে আপনার নেটওয়ার্কে যারা রয়েছে তারা জানতে পারে আপনি কে এবং আপনি কি করেন বা কি ভ্যালু এড করতে পারবেন।

বিঃ দ্রঃ যেহেতু আমি ফেসবুকেই বেশিভাগ ক্লায়েন্ট পেয়ে থাকি তাই অনেকেই আমাকে আগে ম্যাসেজ দিয়েছিল কীভাবে ফেসবুকে ক্লায়েন্ট ধরা যায়। আর এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্যই ভাবলাম সিরিজ আকারে পোস্ট করবো এবং এটাই প্রথম পর্ব।
ইন-শা-আল্লাহ্‌, দ্বিতীয় পরবে আলোচনা করবো কীভাবে প্রফেশনাল ফেসবুক প্রোফাইল বানানো যায়।

আমার হাতের লেখা প্রচণ্ড খারাপ তাই ভুল হলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আর যদি পোস্ট ভাল লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই উৎসাহ দিতে ভুলবেন না।

ধন্যবাদ

 

Writer – Hafizur Rahman

Tags

Shakil Ahmed

I'm a Content writer. My topic is Tech, Story, SEO, Digital Marketing etc. I'm Work With MDOmarMakki.Org Website for CEO of This Website MD Omar Makki

Related Articles

Leave a Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Close
Close