Bangla ArticlesBusiness IdeaBusiness TipsDigital Marketing TipsEarning Tips & TricksFreelancing Tips

ফেসবুকে ক্লায়েন্ট পাওয়া যায় কীভাবে?

ফেসবুকে ক্লায়েন্ট পাওয়া যায় কীভাবে?

পর্ব ৩ঃ

পর্ব ১ এর লিঙ্কঃ Click Here

পর্ব ২ এর লিঙ্কঃ Click Here

প্রথমেই বলে নেই, আমি ফেসবুকে সবসময় ম্যাসেজ থেকে ম্যাসেজ রিকুয়েস্ট চেক করি বেশি।
তো হঠাত একদিন এক ইন্ডিয়ান লোক ম্যাসেজ রিকুয়েস্ট দিয়ে বলে তার তিনটি লোগো লাগবে আগামী ৩ দিনের মধ্যে। আমি করে দিতে পারবো কিনা, এবং সময় খুব ই টাইট মানে এই সময় ভুলেও অতিক্রম করা যাবেনা।
যেহেতু আমি ফ্রি ছিলাম তাই তাকে জানিয়ে দিলাম আমি পারবো। তখন সে আমার চার্জ জানতে চাইলো। আমিও ডান বাম না ভেবে আমার তখনকার প্রতি লোগো চার্জ ২৫০ ডলার করে ৭৫০ ডলার জানিয়ে দিলাম এবং এও বলে দিলাম আমি ৫০% ছাড়া কাজ শুরু করিনা। শুধু লোকটা ইন্ডিয়ান বলে নয়, আমি সকল ক্লায়েন্টের সাথেই কাজ শুরু করার আগে ৫০% আপফ্রন্ট নিয়ে নেই পেমেন্ট প্রটেকশন হিসেবে। প্রফেশনালিজম এর জায়গা থেকে আমি কোন ক্লায়েন্টকেই কখনো ছোট করে দেখিনি, হোক সে বাংলাদেশি, পাকিস্তানি, ইন্ডিয়ান কিংবা সুমালীয়।

আমি খুব ভাল করেই কনফার্ম ছিলাম যেহেতু সে ইন্ডিয়ান সেহেতু সে এই চার্জে রাজী হবেনা হয়ত। কিন্তু আমার সব ধারণা ভুল করে দিয়ে সে আমাকে বলল কীভাবে আপফ্রন্ট পাঠাবে। আমি তাকে বিস্তারিত ইনভয়েজ পাঠিয়ে দিলাম যেখানে পেমেন্ট মেথড সহ বিস্তারিত সকল টার্ম এন্ড কন্ডিশন ছিল।
সে আপফ্রন্ট পাঠিয়ে দিয়ে লোগো ডিটেইলস আমাকে সেন্ড করে সব বুঝিয়ে দিল এবং আমিও অনেক গুলো রিভিশনের পর ঠিক ৩ দিনের মধ্যেই ৩টা লোগো কমপ্লিট করি।

কাজ শেষে ক্লায়েন্ট প্রচণ্ড খুশি হয় আমার কাজে। আমিও তখন চরম খুশি কারন মাত্র ৩ দিনে ১২-১৫ ঘন্টা কাজ করে এতো দ্রুত এতো ইনকাম আগে কখনো হয়নি তাই।

যে ক্লায়েন্ট এর কথা বলছিলাম তার নাম অংকিত পেটেল। অসম্ভব ভদ্রলোক এবং ভাল মানুষ। তার সাথে এখনও কাজ করি এর মধ্যে যে কত মাইলস্টোন কমপ্লিট হয়েছে তার হিসেব নেই। তাকে একদিন প্রশ্ন করেছিলাম ফেসবুকে আমাকে কোথায় পেয়েছে? এবং কেন সে প্রথমে আমার পোর্টফলিও দেখতে চায়নি? উত্তরে যেটা বলেছিল সেটা নিয়ে লিখবো পরবর্তী পর্বে।

এবার আসি দ্বিতীয় ঘটনায়, এই অংকিত পেটেল আমাকে হঠাত একদিন নক দিলেন তার আর্জেন্ট ৪ সেকেন্ডের একটি লোগো ইন্ট্রো লাগবে এবং এর জন্য তার বাজেট ১৫০ ডলার। আমি যদি কাজটি পারি তাহলে যেন করে দেই আর যদি না পারি তাহলে যেন দায়িত্ব নিয়ে কারও মাধ্যমে করিয়ে দেই। আমি যেহেতু কাজটি ভাল ভাবে পারিনা তাই দায়িত্ব নিয়ে কারও মাধ্যমে করিয়ে দেওয়াতে রাজী হলাম।

যেহেতু অন্য কারও মাদ্ধমেই করাবো সেহেতু ভাবলাম বাংলাদেশী কাওকে দিয়েই করাই। তাই তখন UpWork Bangladesh এবং Be Designer গ্রুপে জব পোস্ট করি।
জব পোস্ট করার সাথে সাথে প্রচুর কমেন্ট পরতে শুরু করলো “ইনবক্স মি” লিখে তার মধ্যে আমাকে ম্যাসেজ দিল মাত্র ২-৩ জন।
আচ্ছা ধরুন তো, আপ ওয়ার্কে কোন জবে আপ্লাই করার সময় আপনি কাভার লেটারে লিখে দিলেন “ইনবক্স মি” তাহলে ব্যাপারটা কেমন দেখায়? আমি মনে করি এইখানে প্রফেশনালিজম শেখার যথেষ্ট যায়গা রয়েছে। এই গ্রুপে এখনও প্রায় সকল জব পোস্টে দেখবেন এক শ্রেণীর মানুষ ঠিকি লিখে যাচ্ছে ইনবক্স মি। একবার আপনি ই ভাবুন। কেউ আপনাকে কাজ দিবে সে কেন আপনাকে ইনবক্স করতে যাবে যেখানে তার কাছে শত শত বিকল্প রয়েছে? কিন্তু যারা প্রফেশনাল এবং বুদ্ধিমান তারা ঠিক ই সব কিছু বিস্তারিত ম্যাসেজ দিয়ে তাদের আগ্রহ এবং যোগ্যতা জানান দেয়।

তখন ম্যাসেজ থেকে যোগ্য কাওকে পেলাম না তাই বাধ্য হয়ে “ইনবক্স মি” পাব্লিক থেকে একজনের প্রোফাইল ঘুরে তার কাজ গুলো ভাল লাগলো। আসলেই সত্য, তার কাজ গুলো ছিল ইন্টারন্যাশনাল লেভেলের। তাকে নক দিলাম, নক দেওয়ার পরে এমন ভাব ধরে রিপ্লাই দিচ্ছে যে দেশি ক্লায়েন্ট সব ফকির আর দেশি ক্লায়েন্টরা কখনই টাকা দেয়না। এতো কিছু সহ্য করেও আমি চাচ্ছিলাম কাজ টা ভাল ভাবে শেষ হোক। তারপর তার কাছে চাইলাম ইমেইল এড্রেস, দিল বানান ভুল যুক্ত ইমেইন যেটাতে ইমেইল পাঠানোর ৫ মিনিট পর সেন্ডিং ফেইল্ড এর নটিফিকেশন আসছে অর্থাৎ এই নামে কোন ইমেইল নেই চেক করে দেখি স্পেলিং ভুল তারপর তার ফোন নাম্বার চাইলাম দিল ১২ ডিজিটের ফোন নাম্বার।

সে যত ভাল কাজ ই করুক না কেন এরকম ইরেস্পন্সিবল মানুষকে আশাকরি আমি নয়, কেউ ই কাজ দিবেনা। বাধ্য হয়ে গেলাম ফাইবারে এবং ২৫ ডলার দিয়ে পোল্যান্ডের একজনের গিগ কিনলাম। উল্লেখ্য যে আমার আনুমানিক বাজেট ছিল ১০০ ডলারের মত। তারপর সব কিছু বুঝিয়ে দেওয়ার ২০ মিনিটের মধ্যে আমি যা চাই তা সে করে পাঠিয়ে দিল। তারপর আমি তাকে ৫ ডলার টিপসও দিলাম।

এবার ভাবুন কাজটা কত সহজ ছিল এবং এই সহজ কাজের জন্য আমি ১০০ ডলার পর্যন্ত দিতে রাজী ছিলাম। আমি জানি বাংলাদেশে এরকম হাজার হাজার মানুষ আছে যারা এই কাজটি করার যোগ্যতা ছিল কিন্তু দুঃখের বিষয় তারা কেউ ই কাজটা পেলনা শুধুমাত্র প্রফেশনালিজম এর অভাবে।

সুতরাং এখন থেকেই ফেসবুকে প্রফেশনালিজম প্র্যাকটিস করা শুরু করুন। কোন ক্লায়েন্টকেই ছোট ভাববেন না। পরতেকটা ক্লায়েন্ট এমনকি প্রত্যেকটা ম্যাসেজের মধ্যেও লুকীয়ে থাকতে পারে হাজার সম্ভাবনা। বাদ দিন আজ থেকে “ইনবক্স মি” বলা। কেউ কোন কাজের পোস্ট দিলে তাকে ভালভাবে বিস্তারিত লিখে ম্যাসেজ করুন এই বুঝিয়ে যে আপনি কাজটার প্রতি ইন্টারেস্টেড এবং আপনি এই কাজের যোগ্য। ম্যাসেজ করার সময় সতর্ক হওন। ভুলভাল লেখা থেকে দূরে থাকুন।

বিঃ দ্রঃ আমি একটু অসুস্থ থাকার দরুন ৩য় পর্ব দিতে একটু দেরি হয়ে গেল। আমার টিবি/যক্ষ্মা রোগের চিকিৎসা চলছে। সবার দোয়া কাম্য।

Writer – Hafizur Rahman

Tags

Shakil Ahmed

I'm a Content writer. My topic is Tech, Story, SEO, Digital Marketing etc. I'm Work With MDOmarMakki.Org Website for CEO of This Website MD Omar Makki

Related Articles

Leave a Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
error: Alert: Content is protected !!
Close
Close